অসামপ্রদায়িক ঐক্যের মূর্ত প্রতীক মাইজভান্ডার দরবার শরীফঃ অধ্যাপক শাহ আহমদ নবী।

অসামপ্রদায়িক ঐক্যের মূর্ত প্রতীক মাইজভান্ডার দরবার শরীফঃ অধ্যাপক শাহ আহমদ নবী।

সকল প্রশংসা মহান আল্লাহ জাল্লাশানুহুর প্রতি এবং লাখো-কোটি দরুদ ও সালাম পেশ করছি পরাক্রমশালী ও দয়ালু আল্লাহর মহা সৃষ্টি আম্বিয়াকূল শিরোমণি ও রাহমাতুল্লিল আলামীণ হযরত মুহাম্মদ (দঃ) এর নূরানী দরবারে। আমার ভক্তিপূর্ণ ও অবনত মসতকে কদমবুসি জানাচ্ছি গাউছুল আযম শাহছুফী সৈয়দ মাওলানা আহমদ উল্লাহ (কঃ) মাইজভান্ডারী ও গাউছুল আযম ইউসুফে ছানী সৈয়দ মাওলানা গোলামুর রহমান বাবাভান্ডারী (কঃ) এর কদম কোবারকে। যাতে গাউছে ধনের “মাইজভান্ডার দরবার শরীফ” সম্পর্কে অধম দোয়া প্রার্থীকে উপযুক্ত জ্ঞান দান করেন। এ দরবার শরীফ উপমহাদেশের প্রধান আধ্যাত্মিক চর্চার প্রাণকেন্দ্র এবং এটি কেবল একটি ত্বরীকা বা দর্শন, একটি পারলৌকিক সাধনা কিংবা একটি চেতনার নাম নয় বরং একটি মানবতাবাদী, অসামপ্রদায়িক এবং বিচার সাম্য মূলক সমাজ বিনির্মাণের সংগ্রাম। অসামপ্রদায়িক ঐক্য এবং ইহ ও পারলৌকিক সাধনার মূর্ত প্রতীক। মাইজভান্ডার দরবার শরীফ’ এর স’গিত ও প্রাণ পুরুষ ত্বরীকার প্রবর্তক গাউছুল আযম শাহচুফী মাওলানা সৈয়দ আহমদ উল্লাহ মাইজভান্ডারী (কঃ) ও ভ্রাতুস্পুত্র গাউছুল আযম ইউসুফে সানী সৈয়দ গোলামুর রহমান বাবাভান্ডারী (কঃ) মাইজভান্ডারী দর্শনের পরিপূর্ণ রূপকার হিসেবে এ দরবার প্রতিষ্ঠা করেছেন। সবধরনের গোড়ামী ও মানবতা বিরোধী অশুভ শক্তির বিরুদ্দে একটি সামাজিক, রাজনৈতিক, ধর্মীয় ও অর্থনৈতিক বিপ্লব। ভৌগোলিক অবস’ানগত, ভাষাগত ও জাতীয়তার নিরিখে মাইজভান্ডার দরবার শরীফের একটি বিশেষ বৈশিষ্ট রয়েছে। বিশ্বের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ ইমামূল আম্বিয়া নূরে মোজাচ্ছম রসূলে করীম (দঃ) এর প্রচারিত শানি-র ধর্ম ইসলামের বাণীকে বিশ্ব মানবতার শানি-র জন্য বিবর্তনিক ধারায় তদ্বীয় খলিফা খোলাফায়ে মাইজভান্ডারী আওলাদে রাসূল (দঃ) বা তদ্বীয় উত্তরাধিকারীগণের মধ্যে ধারাবাহিকভাবে প্রিয়নবী (দঃ) এর বেলায়াত শক্তি বিতরণের মাধ্যমে ত্রাণ কর্তৃত্ব ও কর্ম কর্তৃত্ব (গাউছিয়ত ও কুতুবিয়ত) জারি রেখেছেন। সুক্ষ্মতর ও চূড়ান- বিশ্লেষণে কেবল মানুষ নয়, মহান আল্লাহর সৃষ্টি সকল জীবই বিচার সাম্যের প্রত্যাশী। মাইজভান্ডারী জীবন দর্শনের এ চেতনা একদিকে যেমন মানবতাবাদী মানুষকে করেছে তুমূল আলোড়িত, অন্যদিকে তেমনি মাইজভান্ডারী সঙ্গীতের সূর বিশ্ব সংগীত জগতকে করেছে প্রভাবিত। এ মাইজভান্ডারী দরবার শরীফকে কেন্দ্র করে শাশ্বত মরমী বাংলার লোক সংস্কৃতির অবয়বে নূতন রঙে নতুন ঢঙে, নতুন সুরে ও রুপে আবির্ভূত রয়েছে বিশ্বের লৌক সংস্কৃতির সুবিশাল চত্বর। মাইজভান্ডার দর্শনে ধর্ম সাম্যের যে বক্তব্য, তার বাসতব প্রয়োগ পরিলক্ষিত হয় মাইজভান্ডারী ত্বরীকার প্রবর্তক শাহ সুফী সৈয়দ আহমদ উল্লাহ মাইজভান্ডারী (কঃ)’র কর্ম কান্ডের ভেতরে। তিনি জাতি, ধর্ম, বর্ণ ও গোষ্ঠি নির্বিশেষে স্ব-স্ব ধর্মে থেকে কাজ করার ও আল্লাহকে স্মরণ করার পরামর্শ দিতেন। সমপ্রদায়গত ভেদ বুদ্দির উর্দ্বে তার কর্মকান্ড সকল সমপ্রদায়ের মানুষকে দারুনভাবে প্রভাবিত করে। এ কারনে দেখা যায় ধীরে ধীরে মাইজভান্ডার দরবার শরীফ পরিণত হয়ে উঠে সকল ধর্মের মানুষের এক অপূর্ব মিলন কেন্দ্র রুপে। তাছাড়া হযরত কেবলা কাবার খলীফা নির্বাচনের প্রতিফলন সুস্পষ্ট । যেমন-হিন্দু মনমোহন দত্ত, কালাচান সাধ, কবিয়াল রমেশ শীল, বৌদ্ধ ধনঞ্জয় বড়-য়া, খ্রিষ্টান মাইকেল পেনারু প্রমুখকে আধ্যাত্ম অনুক’ল্য প্রাপ্ত সিদ্ধ পুরুষ হিসেবে পরিচিতি দান স’ান ও কালের বিচারে রীতিমত যুগানতকারী ঘটনা মাইজভান্ডারী দর্শনের সমন্বয় ধর্মী, বিশ্বমানবতার মিলন মন্ত্রের যে বীজ রোপন করেছিলেন হযরত গাউছুল আযম মাওলানা সৈয়দ আহমদ উল্লাহ্‌ মাইজভান্ডারী (কঃ) তার তিরোধানের পর তারই ভ্রাতুস্পুত্র ও নয়নমনি ইউসুফে ছানী হযরত গাউছুল আযম সৈয়দ গোলামুর রহমান বাবাভান্ডারী (কঃ) ফলে ফলে সুশোভিত করে বিশ্বব্যাপী পরিপূর্ণ বিকাশের ব্যবস’া করে যথাযথ রূপদান করেছেন। বিগত শতাধিক বছর ধরে এ দরবার শরীফ পাপী-তাপী, শোষিত, নির্যাতিত, মোহান্ধ, অবহেলিত, রোগাক্রানত, দিশেহারা ও পথহারা নীতিহারা এবং অভাবগ্রস’, দীনহীন মানবতার আশ্রয় স’ল, পদপ্রদর্শক, আল্লাহপাকের সন’ষ্টি অর্জনের উপায ও ধর্ম সাম্যের স’তি গেয়ে আধ্যাত্মিক লৌকিক, পারলৌকিক শানি-র ঠিকানা হিসেবে ভূমিকা পালন করে আসছে। এ দরবার শরীফে শায়িত আছেন গাউছুল আযম শাহসূফী হযরত সৈয়দ আহমদ উল্লাহ মাইজান্ডারী (কঃ) গাউসুল আযম ইউসুফে ছানী সৈয়দ গোামুর রহমান (কঃ) বাবাভান্ডারী। যুগল গাউছুল আযম সহ অসংখ্য আওলাদে রাসূল (দঃ) এর আউলিয়া স’ান হিসেবেও মহিমান্বিত। বায়তুল মুকাদ্দাস মুসলিম, খৃষ্টান ও ইহুদী সমপ্রদায়ের জন্য তীর্থ স’ান। কিন’ মাইজভান্ডার দরবার শরীফ জাতি, ধর্ম, বর্ণ ও গোত্র নির্বিশেষে সকলের জন্য উন্মুক্ত। প্রাণের তাগিদে, ত্রাণের তাগিদে তাই প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ ছুটে আসেন মাইজভান্ডার দরবার শরীফে।
ভারতীয় উপমহাদেশের বাংলাদেশ ভূ-খন্ডের বার আউলিয়ার পূণ্য ভুমি চট্টগ্রামের মাইজভান্ডার দরবার শরীফ ধর্মের বাণী, প্রেমের বাণী ও ধর্ম সাম্যের নীতিতে প্রচারিত মাইজভান্ডারী দর্শনের এ উদার ও অসামপ্রদায়িক ঐক্যের মূর্ত প্রতীক বিশ্ববাসীকে বিতরণ করে যাচ্ছে অফুরনত খোদায়ী নিয়ামত। সর্বোপরি, সমন্বয়ধর্মী বক্তব্য বিশ্ববাসীর নিকট যথাযথভাবে তুলে ধরতে সক্ষম হলে বিশ্ব মানবতার ও সভ্যতার বিকাশের নতুন দিগনেতর দ্বার উম্মোচিত হবে বলে আমরা বিশ্বাস করি। দীর্ঘকাল ধরে সূফী সাধকদের অসমাপ্রদায়িক উদার মানবতাবাদী নীতি ও শিক্ষা বাঙালী জনজীবনের উপর সুদূরপ্রসারী প্রভাব বিসতার করে আছে, মাইজভান্ডার দরবার শরীফ তারই অন্যতম দৃষ্টানত। সূফী সাধকদের প্রবাহমান অবদানের ধারায় মাইজভান্ডার দৃষ্টি আকষণীয় ও উল্লেখযোগ্য হারে নতুন মাত্রার সংযোগ ঘটিয়েছে অসমপ্রাদায়িক কর্মকান্ড দ্বারা। তাই এ দরবার শরীফে জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে বিভিন্ন শ্রেণী ও পেশার মানুষের এক মহামিলন ক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। আমরা মানবজাতির বিশ্বাস ও ইগু সম্পর্কিত ইতিহাস অধ্যয়ন করলে দেখতে পাই বিশ্বাসজনিত সংঘাতই ঐতিহাসিকভাবে এক চরম সংকট। মানব সভ্যতার ইতিহাসে ক্রম:ধারায় স’ান-কাল, পাত্র ও বর্ণভেদে ভিন্ন ভিন্ন মত পার্থক্যগত বিশ্বাসের দ্বন্দ্ব ও সংঘাতে বিশ্বের কত লক্ষ-কোটি অধিবাসীকে অকালে প্রাণ দিতে হয়েছে? তার হিসাব বের করা কঠিন। এখনো মানুষ মানুষকে হত্যা করতে দ্বিধা করছে না। বিশ্বাস জনিত নানা দ্বন্দে। রাহমাতুল্লিল আলামীন ইসলামী জিহাদ যুগে প্রতিটি যুদ্ধের সেনাপতিদের পবিত্র কুরলান ছুয়ে শপথ করাতেন যেন নিরীহ মানুষ হত্যা করা না হয়। (২) নারী ও শিশু হত্যা কোন অবস’ায় করা যাবে না। (৩) অসহায ও পঙ্গু ব্যক্তিদের কে হত্যা করা যাবে না। (৪) ধর্মের প্রতি চরম আঘাত না আনা পর্যনত বিধর্মী বা কাফেরদের প্রতি তলোয়ার চালানো যাবে না। (৫) ব্যক্তিগত আক্রোশে কাউকে অন্যায়ভাবে কতল করা যাবে না। (৬) ভূমি ধবংস, শস্যক্ষেত ধবংস বা উদ্ভিদরাজী তথা প্রকাৃতিক পরিবেশকে বিপন্ন করা যাবে না। (৭) খাদ্য ও পানীয় জল নষ্ট করা যাবে না। অথচ সমপ্রতি আমাদের দেশের সীমানত রক্ষীগণ বাতিল ইসলামী গ্রুপের সদস্য জেএমবিদের ন্যায় পৈশাচিক ও শতাব্দীর নির্মম হত্রা কান্ড পরিচালনা করে দেশের মেধাবী,ত চৌকস ও নিবেদিত প্রাণ সেনাবাহিনীর অসংখ্য কর্মকর্তাকে কিবাবে ব্রাশ ফায়ার করতে পারল? তাদের কি একটুও বুক কাপল না? কিসের স্বার্থে সুশৃংখল সেনা কর্মকর্তাদের অমূল্য জীবন ধবংশ করেছিল? নৈতিক মূর‌্যবোধ ও ধর্মের গুঢ় রহস্য সম্পর্কে তারা ওযাকিবহাল আছে কি? যে প্রাণী পিপড়া তৈরি করতে অক্ষম সে কিবাবে আল্লাহর সৃষ্টিকে তছনছ করতে চায়? আল্লাহপাক বাংলাদেশ ও বাঙালী জাতিকে ইহুদী-নাসারা চক্রের ষড়যন্ত্র থেকে হেফাজত করুন। আমিন। ধর্মের নামে, বর্ণের নামে, জাতীয়তার নামে সংস্কৃতির নামে বর্বরতাই অনাদিকাল থেকে আমাদের পৃথিবীকে অশানত ও বিপন্ন করেছে। হিংসা ও লোভের বিষাক্ত থাবায় বিশ্বব্যাপী কোটি কোটি আদম সনতান হত্যার শিকার হয়েছে। তারা জীবন র্দনকে জানবার, বুঝবার কিংবা উপভোগ করার পূর্বেই ঘৃণার তপ্ত আগুনে নিঃশেস করেছে অগণিত প্রাণ। ধর্মগত বিশ্বাসে মানুষের মধ্যে দুই ধরনের সংঘাত রূপ ধারণ করে। যেমন-১. স্ব-স্ব র্ধরে কাঠামোর মধ্যে উপদলীয় কোন্দল ও হানাহানি। ২. নিজ ধর্মের প্রাধান্যতা ও অন্য ধর্মের প্রতি অজ্ঞতা প্রসূত অবজ্ঞা ও বিদ্বেষজনিত হানাহানি। ধর্মীয় পরিমন্ডল থেকে মানুষ নৈতিকতার শিক্ষা গ্রহণ করে থাকেন। অথচ ধর্মীয় পরিমন্ডলেল অনতঃকলহ, পারস্পরিক ধর্মীয় প্রতিযোগিতার দ্বন্দ্ব, ধর্মীয় কৌলিন্যের সংঘাত সমগ্রভাবে মানব সভ্যতাকে ধ্বংসের দ্বারপ্রানে- দাড় করিয়েছে। ধর্মের এহেন সংঘাতময় পরিসি’তি থেকে উত্তরণের জন্য দরকার একজন খোদায়ী ছিফাতধারী যুগ সংষ্কারক। যিনি রুপে, গুনে ও কর্মকান্ডে অতুলনীয় ও অনুসরনীয় এবং অনুকরণীয় গুনে গুনাণ্বিত হবেন। মাইজভান্ডার দরবার শরীফের প্রাণ পুরুষ, রূপকার, দিক-পাল ও সংস্কারক হিসেবে এং ত্রান কর্তৃত্ব ও কর্ম কর্তৃত্ব মত সম্পন্ন বুজর্গদের মধ্যেকার অসমপ্রদায়িক, ধর্ম সাম্য ও মানবতার রক্ষাকবচ নীতি বিশ্ববাসীকে দান করেছে অনুপম শানি- ও মানবিক গুনাবলী বিকাশের খনি। মহানবী (দঃ) ছিলেন সমগ্র মানবজাতির জন্য প্রেরিত রাসূল। ইসলাম ধর্ম শানি- ও মানবিক ধর্ম। আমাদের প্রিয়নবীজি কোন একক জাতি, সমপ্রদায় বা গোষ্ঠীর জন্য নয়। আল্লাহ বারাক তা’য়ালা সমগ্র বিশ্ব মানবতার হেদায়েতের জন্য তাঁকে পঠিয়েছেন, তাইতো তিনি সমগ্র জগতের জন্য রহমত বা আর্শীবাদ স্বরূপ। মানবজাতির জন্য রহমতের এ করুনাধারা তদ্বীয় বংশধর, ছাহাবী ও বেলায়েত প্রাপ্ত প্রতিনিধিগণ কর্তৃক বিশ্ব ব্রহ্মান্ডের প্রতিটি আনাচে কানাচে পৌছানো হয় প্রিয়নবী (দঃ) এর বিদায় হজ্বের উদাত্ত আহ্বান। নির্দেশ ও সর্তককারী বানী প্রত্যেকের কর্ণ কূহরে হসতানতরের মাধ্যমে। অতঃপর পবিত্র মদিনা মনোয়ারা থেকে দূর দূরানে-, এবং প্রত্যত্ম অঞ্চলের সর্বসাধারনের নিকট সূফী সাধকগন কর্তৃক ইসলামের দাওয়াত প্রেরিত ও প্রচারিত হয়ে আসছে। ইসলামের চিরনতন বাণী, শ্বাশ্বত রূপকে সর্বসাধারণের নিকট অবিকৃতভাবে তুলে ধরার ক্ষেত্রে পবিত্র সূফী সাধকেরা নির্মোহ ও নৈব্যিকৃতকভাবে যুগ

Posted in Uncategorized, লেখনী সমূহ | Comments Off on অসামপ্রদায়িক ঐক্যের মূর্ত প্রতীক মাইজভান্ডার দরবার শরীফঃ অধ্যাপক শাহ আহমদ নবী।

অশাšি—-নৈরাজ্য থেকে দেশবাসীকে বাঁচাতে জাতীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের প্রতি আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আহŸান

অশাšি—-নৈরাজ্য থেকে দেশবাসীকে বাঁচাতে জাতীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের প্রতি আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আহŸান

ডেস্ক ঃ চলমান রাজনৈতিক সংঘাত ও হানাহানির কবল থেকে দেশবাসীর জানমাল র¶া এবং শাšি— শৃংখলা ফিরিয়ে আনার জন্য জাতীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দকে অবিলম্বে সমঝোতায় পৌঁছার জন্য আহŸান জানিয়েছেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের শীর্ষ স্থানীয় ওলামা ও পীর মাশায়েখ নেতৃবৃন্দ। এক বিবৃতিতে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশ আজ চরম ক্রাšি—কাল অতিক্রম করছে। চারিদিকে অস্থিরতা, অশাšি—, নৈরাজ্য, জ্বালাও-পোড়াও, ভাঙচুর ইত্যাদিতে সাধারণ মানুষ আজ ভীষণ আতংকিত। কোমলমতি শিশুদের শি¶াজীবনে স্থবিরতা, দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতিসহ সার্বিক অবস্থার এ নাজুক সন্ধি¶ণে কোন বিবেকবান মানুষ নিশ্চুপ বসে থাকতে পারে না। তাই জাতীয় নেতৃবৃন্দের প্রতি আমাদের আহŸান যত দ্র“ত সম্ভব এই কঠিন অবস্থার অবসান কল্পে এগিয়ে আসুন। রাজনৈতিক হানাহানি আর হিংসা বিদ্বেষের বলি আজ সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ। অনাহারে অর্ধাহারে দিনাতিপাত করছে অসংখ্য পরিবার। শাšি— প্রিয় দেশবাসীর আজ জিজ্ঞাসা আর কতদিন চলবে এ দুর্যোগ? তাই এক মুহূর্ত দেরি না করে জাতীয় ¯^ার্থের কথা বিবেচনায় এনে সরকার এবং বিরোধী দলকে প্রয়োজনীয় সব ধরনের ছাড় দিতে হবে। আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের শীর্ষ আলেম ও পীর মাশায়েখবৃন্দ বিবৃতিতে আরও বলেন, আমাদের অভ্যš—রীণ সমস্যার সমাধান যদি আমরা করতে পারতাম তাহলে বহির্বিশ্বের হ¯ে—¶েপ প্রয়োজন হত না। যা অত্যš— দুঃখজনক। ¯^াধীন রাষ্ট্রের নাগরিক হয়ে বিদেশীদের ইঙ্গিতে উঠাবসা করা দাসত্বের নামাš—র। আমরা দাসত্বের শৃক্সখল হতে মুক্তি পেতে চাই। নতুন প্রজন্ম যেন একটি সুন্দর-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ উপহার পেতে পারে সে ল¶্যে কাজ করা সকল রাজনৈতিক দলের উচিত। তাই সব ধরনের সংকীর্ণতা-হিংসা বিদ্বেষ পরিহার করে ও দলীয় ¯^ার্থে অনড় অবস্থান থেকে সরে এসে দেশে শাšি— শৃংখলা ফিরিয়ে আনতে জাতীয় নেতৃবৃন্দের প্রতি উদাত্ত আহŸান জানান আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের শীর্ষ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। তাঁরা অশাšি—-অরাজকতা থেকে পরিত্রাণে মহান আল­াহর রহমত কামনা করেন। শীর্ষ স্থানীয় ওলামা পীর মাশায়েখ ও আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের নেতৃবৃন্দের মধ্যে বিবৃতি প্রদান করেন, ইমামে আহলে সুন্নত আল­ামা কাজী মুহাম্মদ নুর“ল ইসলাম হাশেমী, মাইজভাÊার দরবার শরীফে সাজ্জাদানশীন রাহ্বারে শরীয়ত ও ত্বরীকত হযরত শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী, পীরে ত্বরীকত আল­ামা মুফতী ইদ্রিস রজভী, খতিবে বাঙাল অধ্য¶ আল­ামা মুহাম্মদ জালালুদ্দীন আল কাদেরী, পীরে ত্বরীকত আল­ামা মুহাম্মদ আজিজুল হক আল কাদেরী, পীরে ত্বরীকত আল­ামা হাফেজ সাইফুর রহমান নেজামী, পীরে ত্বরীকত আল­ামা আবদুল করিম সিরাজনগরী, আল­ামা মুফতী ওবায়দুল হক নঈমী, অধ্য¶ আল­ামা সৈয়দ মুহাম্মদ নুর“ল মুনাওয়ার, পীরে ত্বরীকত আল­ামা সৈয়দ মছিহুদ্দৌলা, শায়খুল হাদিস আল­ামা কাজী মুঈনুদ্দিন আশরাফী, আল­ামা নুর“ল ইসলাম জামালপুরী প্রমুখ।

Posted in Uncategorized | Comments Off on অশাšি—-নৈরাজ্য থেকে দেশবাসীকে বাঁচাতে জাতীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের প্রতি আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আহŸান

নরসিংদীর পলাশে আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়ার মাইজভাÊারী সম্মেলনে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী- অশাšি—-হানাহানি ও অব¶য়ের গ্রাস থেকেমুক্তি পেতে মাইজভাÊারী মহাত্মাদেরঅনুসৃত অহিংস নীতিকে গ্রহণ করতে হবে-

নরসিংদীর পলাশে আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়ার মাইজভাÊারী সম্মেলনে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী-
অশাšি—-হানাহানি ও অব¶য়ের গ্রাস থেকেমুক্তি পেতে মাইজভাÊারী মহাত্মাদেরঅনুসৃত অহিংস নীতিকে গ্রহণ করতে হবে-

নরসিংদী ঃ আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাÊারীয়ার উদ্যোগে ১৩ ডিসেম্বর’১৩ শুক্রবার, নরসিংদির পলাশ থানার ডাঙ্গায় খলীফা মুহাম্মদ আবদুল আজিজের বাড়ি প্রাঙ্গণে এক মাইজভাÊারী মাহফিল গত ১৩ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়। মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন মাইজভাÊার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন ও আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাÊারীয়ার কেন্দ্রীয় সভাপতি হযরত শাহ্সূফী সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)। মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন খলীফা মুহাম্মদ আবদুল আজিজ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী বলেন, অশাšি—-হানাহানি-রক্তপাত ও সংঘাতে দেশবাসীর শাšি—-¯^¯ি— আজ উধাও হয়ে গেছে। অব¶য়-নৈরাজ্যের অসহায় শিকার দেশের নিরীহ মানুষ ও যুব সমাজ। চারিদিকে এই নৈরাশ্য ও হাতাশাজনক পরিস্থিতির একমাত্র কারণ লোভ, বৈষয়িক মোহ ও আধিপত্য বি¯—ারের প্রবল মানসিকতা। তিনি বলেন, মাইজভাÊারী মহাত্মাগণ সব সময় লোভ সংবরণ, অতি চাহিদা নিয়ন্ত্রণ, অন্যের প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধাবোধের চেতনা ধারণ ও হিংসা-অহংকারকে অবদমনের শি¶াই দিয়ে থাকেন। যা মানা হলে দুনিয়া হয়ে উঠবে শাšি— ও ¯^¯ি—র ঠিকানা। হিংসা বিদ্বেষ-হানাহানি-সংঘাত ও অব¶য়ের গ্রাস থেকে মুক্তি পেতে হলে আমাদেরকে মাইজভাÊারী মহাত্মাদের প্রদর্শিত অহিংস ও স¤প্রীতির নীতিই মনে প্রাণে গ্রহণ করতে হবে। যা এই মুহূর্তে বড় প্রয়োজন। মাহফিলে বক্তব্য রাখেন মাওলানা মুফতি বাকি বিল­াহ আল আযহারী, মাওলানা র“হুল আমিন ভুঁইয়া চাঁদপুরী, মুহাম্মদ জাবেদ, মুহাম্মদ আলম, খন্দকার মুহাম্মদ কাজল, খলীফা জুবায়েদ আহমদ মার“ফ প্রমুখ। সালাত সালাম শেষে দেশ ও জাতির শাšি—-কল্যাণ কামনায় মুনাজাত পরিচালনা করেন হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)।

Posted in Uncategorized | Comments Off on নরসিংদীর পলাশে আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়ার মাইজভাÊারী সম্মেলনে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী- অশাšি—-হানাহানি ও অব¶য়ের গ্রাস থেকেমুক্তি পেতে মাইজভাÊারী মহাত্মাদেরঅনুসৃত অহিংস নীতিকে গ্রহণ করতে হবে-

নরসিংদীর মানিকদিতে আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়ার বার্ষিক মাহফিলে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)-মানবিক গুণাবলী অর্জনের মাধ্যমে মানুষকে ইনসানে কামেলে পরিণত করাই মাইজভাÊারী দর্শন

নরসিংদীর মানিকদিতে আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়ার বার্ষিক মাহফিলে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)-মানবিক গুণাবলী অর্জনের মাধ্যমে মানুষকে ইনসানে কামেলে পরিণত করাই মাইজভাÊারী দর্শন
নরসিংদী ঃ মাইজভাÊার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন আওলাদে রাসূল সাল­াল­াহু আলাইহি ওয়াছাল­াম হযরত শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী বলেন, বৈষয়িক ¯^ার্থে ডুবে থাকার ফলে এবং নানামুখী তাড়নায় মানুষ মানবিক গুণ-বৈশিষ্ট্য হারিয়ে ফেলে বিপথগামী হয়ে যায়। অব¶য়-অনৈতিকতার পথ থেকে মানুষকে দূরে সরিয়ে রাখা এবং মানবিক গুণাবলী অর্জনের মাধ্যমে দিশাহীন বিভ্রাš— মানুষকে ইনসানে কামেল তথা পরিপূর্ণ মানুষে পরিণত করাই মাইজভাÊারী ত্বরীক্বা ও দর্শনের মূল উপজীব্য। মাইজভাÊারী আধ্যাত্মিক মনীষীদের জীবনাদর্শ অনুসরণে জীবন গড়তে পারলে দুনিয়া-আখেরাতে সাফল্য ও নাজাত অবশ্যম্ভাবী বলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন। আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাÊারীয়ার উদ্যোগে নরসিংদীর শিবপুর মানিকদিতে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী পলক চৌধুরীর বাড়ি সংলগ্ন ময়দানে ১৩ ডিসেম্বর’১৩ শুক্রবার বিকালে অনুষ্ঠিত বার্ষিক মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী একথা বলেন। মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী পলক চৌধুরী। বক্তব্য রাখেন খলিফা মুহাম্মদ ফিরোজ, মুহাম্মদ শাহজাহান, খলীফা মুহাম্মদ মার“ফ, খলীফা মুহাম্মদ আবদুল আজিজ, খলীফা মুহাম্মদ আমিন, মফিজুর রহমান, খতিব মাওলানা হাফেজ আবদুল মান্নান, মুহাম্মদ রাশেদ প্রমুখ। সালাত সালাম শেষে বিশ্বশাšি—, অশাšি—-অরাজকতা-হানাহানি থেকে পরিত্রাণে আল­াহর রহমত কামনায় মুনাজাত পরিচালনা করেন হযরত শাহ্সূফী সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী। মাহফিলে বহু ভক্ত জনতা অংশগ্রহণ করেন।

Posted in Uncategorized | Comments Off on নরসিংদীর মানিকদিতে আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়ার বার্ষিক মাহফিলে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)-মানবিক গুণাবলী অর্জনের মাধ্যমে মানুষকে ইনসানে কামেলে পরিণত করাই মাইজভাÊারী দর্শন

হযরত শাহ্সূফী সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ক.) আজীবন মানুষকে সিরাতুল মু¯—াকিমের পথে ডেকেছেন-শরীয়তপুর বেদরগঞ্জে মাইজভাÊারী সুন্নি সম্মেলনে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী

শরীয়তপুর বেদরগঞ্জে মাইজভাÊারী সুন্নি সম্মেলনে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী-
হযরত শাহ্সূফী সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ক.)আজীবন মানুষকে সিরাতুল মু¯—াকিমের পথে ডেকেছেন-
শরীয়তপুর ঃ আওলাদে রাসূল সাল­াল­াহু আলাইহি ওয়াছাল­াম, মাইজভাÊার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন হযরত শাহসূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী বলেছেন, সর্ব¯—রের মুক্তি প্রত্যাশী শাšি—কামী মানুষকে আজীবন দ্বীন ইসলাম ও সিরাতুল মু¯—াকিমের পথে আহŸান করেন শায়খুল ইসলাম হযরত শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী কাদ্দাছাল­াহু ছিররাহুল আজিজ। অসীম কষ্ট ¯^ীকার করে দেশের নানা প্রাšে— ও দেশে দেশে ছুটে গিয়ে মুর্শিদ কেবলা কাদ্দাছাল­াহু ছিররাহুল আজিজ হক্বের দাওয়াত ও মাইজভাÊারী ত্বরীক্বার দাওয়াত সর্বোত্তমভাবে তুলে ধরেছেন। ইসলাম-সুন্নিয়ত ও মাইজভাÊারী ত্বরীক্বার বিশ্বব্যাপী প্রচার-প্রসারের ¶েত্রে এই মহান আধ্যাত্মিক সাধকের কর্মনীতি ও কর্মকীর্তির কথা স্মরণীয় হয়ে থাকবে। মুসলমানদেরকে আত্মমর্যাদা নিয়ে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর শি¶া-দী¶াই দিয়ে গেছেন তিনি। বর্তমান নাজুক সময়ে মুর্শিদ কেবলার কাদ্দাছাল­াহু ছিররাহুল আজিজ মতো মহান দিশারী ও আধ্যাত্মিক পথ প্রদর্শকের প্রয়োজনীয়তা খুব বেশি অনুভূত হচ্ছে বলে তিনি উলে­খ করেন। গত ২৬ নভেম্বর’১৩ মঙ্গলবার শরীয়তপুর ভেদরগঞ্জ মডেল হাইস্কুল মাঠে আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাÊারীয়ার উদ্যোগে আয়োজিত মাইজভাÊারী মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী একথা বলেন। মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন কমিশনার মুহাম্মদ আবুল বাশার। মাহফিলে ওলামায়ে কেরামের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মুনাজেরে আহলে স্ন্নুাত মাওলানা নূর“ল ইসলাম জামালপুরী, মুফতী বাকী বিল­াহ আল-আযহারী, মাওলানা র“হুল আমীন ভুঁইয়া চাঁদপুরী। উপস্থিত ছিলেন খলীফা খালেক চৌকদার, খলীফা মজিবুর মৃধা, খলীফা আবুল কালাম, খলীফা শাহাদাত রাঢ়ী প্রমুখ। মিলাদ-ক্বিয়াম শেষে আখেরী মুনাজাত পরিচালনা করেন মাইজভাÊার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী।

Posted in Uncategorized | Comments Off on হযরত শাহ্সূফী সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ক.) আজীবন মানুষকে সিরাতুল মু¯—াকিমের পথে ডেকেছেন-শরীয়তপুর বেদরগঞ্জে মাইজভাÊারী সুন্নি সম্মেলনে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী

সর্ব ¶েত্রে কোরআন ও সুন্নাহের বিধান মেনে চলতে হবে-হযরত মাওলানা শাহ্সূফী সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)

সর্ব ¶েত্রে কোরআন ও সুন্নাহের বিধান মেনে চলতে হবে-হযরত মাওলানা শাহ্সূফী সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)
মতলব উত্তর ঃ রাসূল সাল­াল­াহু আলাইহি ওয়াছাল­ামের পথ অনুসরণ করে সর্ব ¶েত্রে কোরআন ও সুন্নাহের বিধান মেনে চলতে হবে। ২৩ অক্টোবর’২০১৩, বুধবার রাতে মতলব উত্তর উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের দূর্গাপুর গ্রামে মৃত সালাম উল্যাহ বেপারীর বাড়ীতে ওয়াজ ও দোয়ার মাহ্ফিল ও গাউছিয়া মইনীয়া সাইফিয়া সুন্নীয়া হাফেজীয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানার উদ্বোধন উপল¶ে মাইজভাÊার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন, আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাÊারীয়ার কেন্দ্রীয় কমিটি চেয়ারম্যান, নবী বংশের ৩১তম বংশদর, মাদ্রাসার সভাপতি আলহাজ্ব সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী ওয়াল হোসাইনী আল্-মাইজভাÊারী প্রধান অতিথির বক্তব্য একথা বলেন। তিনি আরও বলেন, দূর্গাপুর গ্রামে একটি সঠিক আক্বীদা ভিত্তিক মাদ্রাসা ও এতিমখানার খুবই প্রয়োজন ছিল। কারণ কুরআন ও সুন্নাহর বিধান সর্বত্র ছড়িয়ে দিতে মাদ্রাসা শি¶ার বিকল্প নেই। আজ মাদ্রাসা শি¶ার নামে বিভিন্ন বাতিল আক্বীদার প্রচার-প্রসারের মাধ্যমে নানাবিধ ষড়যন্ত্র চলছে। এ বাতিল ফিরকার রাহুগ্রাস থেকে সহজ সরল শি¶ার্থীদেরকে মুক্ত করে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আক্বীদা ভিত্তিক সঠিক ইসলাম প্রচার-প্রসারের এ মাদ্রাসা অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। উক্ত মাদ্রাসায় এলাকার গরীব ও এতিম শিশুরা দীনের শি¶ায় শি¶িত হয়ে পরিপূর্ণ ইসলাম গঠনে বিশেষ ভ‚মিকা পালন করবে। তাই এই মাদ্রাসায় সকলে আš—রিক সহযোগীতা করবেন। প্রধান অতিথির সঙ্গে সফর সঙ্গী হিসেবে বিভিন্ন ওলামায়ে কেরাম কোরআন ও হাদিসের আলোকে মূল্যবান বয়ান রাখেন। উক্ত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন, খলিফা আব্দুর রাজ্জাক আল মাইজভাÊারী। কোরআন ও সুন্নাহের আলোকে ওয়াজ করেন হযরত মাওলানা পীরজাদা আলহাজ্ব খাজা বাকি বিল­াহ আজহারী ও আলহাজ্ব মাওলানা র“হুল আমিন ভ‚ইয়া। এসময় উপস্থিত ছিলেন গাউছিয়া মইনীয়া সাইফিয়া সুন্নীয়া হাফেজিয়া ও এতিমখানা মাদ্রাসার সহ-সভাপতি ডাঃ মুহাম্মদ আবু হানিফ মিয়াজী, হুমায়ূন কবির, সিরাজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন, কোষাধ্য¶ নূর“ল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক ফজলুল হক, সদস্য নুর ইসলাম, উপদেষ্টা আব্দুল খালেক মাষ্টার, জসিম উদ্দিন প্রধান, সমাজ সেবক সাইফুল ইসলাম খোকন, আবু সৈয়দ গোলাম রাব্বানী মামুন, ইউপি সদস্য বিল­াল প্রধান, খলিফা শাহাদাৎ ভ‚ইয়া আল মাইজভাÊারী, আলমগীর হোসেন বেপারী আল মাইজভাÊারী, বিল­াল হোসেন শাš—, হাসান ইমাম, সালাম উল্যাহ, মানিক মিয়াজী, ইঞ্জিনিয়ার তাইজ উদ্দিন, ইঞ্জিনিয়ার হার“ন অর রশিদ প্রমূখ। পরে সালাত সালাম শেষে বিশেষ মুনাজাত পরিচালনা করেন হুজুর কেবলা মাদ্দাজিল­ুহুল আলী।

Posted in Uncategorized | Comments Off on সর্ব ¶েত্রে কোরআন ও সুন্নাহের বিধান মেনে চলতে হবে-হযরত মাওলানা শাহ্সূফী সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)

ইসলামের নামে সন্ত্রাস ও উগ্রপন্থা পরিহার করা ও ভারসাম্যপূর্ণ মধ্যপন্থা অবলম্বনই ইসলামের নির্দেশনা-চট্টগ্রাম মাইজভাÊার মন্জিলে সূফীজ এর তাসাউফী জলসায় সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)

চট্টগ্রাম মাইজভাÊার মন্জিলে সূফীজ এর তাসাউফী জলসায়
সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)
ইসলামের নামে সন্ত্রাস ও উগ্রপন্থা পরিহার করা ও ভারসাম্যপূর্ণ মধ্যপন্থা অবলম্বনই ইসলামের নির্দেশনা-
ডেস্ক ঃ আš—র্জাতিক সূফী ঐক্য সংহতি (সূফীজ) এর মাসিক তাসাউফী জলসা ও চট্টগ্রাম মহানগর সূফীজের বিশেষ সভা ১০ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বিকেলে নগরীর চকবাজার কাপাসগোলাস্থ মাইজভাÊার মন্জিলে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ‘সূফীজ’ এর কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান রাহ্বারে শরীয়ত ও ত্বরীকত শাহ্সূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী। অনুষ্ঠানে এতে কুরআন মজিদের সূরা আল বাক্বারার কয়েকটি আয়াতের অনুবাদ ও তফসীর পেশ করেন অধ্য¶ গোলাম মুহাম্মদ খান সিরাজী। তাসাউফী জলসায় নির্ধারিত বিষয়বস্তুর আলোকে কুরআন মজিদের একটি আয়াতের সারমর্ম আলোচনায় হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী বলেন, কুরআন শরীফে আল­াহপাক ‘যায়ালনাকুম উম্মাতান ওয়াসাতান’ তথা মুসলমানদেরকে মধ্যপন্থী স¤প্রদায় হিসেবে সৃষ্টি করার শাশ্বত ঘোষণা দিয়েছেন। তাই, সম্মান- মর্যাদা ও শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের মাপকাঠি হলো ভারসাম্যপূর্ণ মধ্যপন্থা অবলম্বন করা। এজন্যই ইসলামের নামে উগ্রতা-সন্ত্রাস-হানাহানিতে জড়ানোর কোনো সুযোগ নেই। ইসলামের নামে সন্ত্রাস ও উগ্রপন্থা পরিহার করা ও ভারসাম্যপূর্ণ মধ্যপন্থা অবলম্বনই ইসলামের নির্দেশনা। তিনি বলেন, একজন ইনসানে কামেল তথা পরিপূর্ণ মানুষের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে পরমত সহিষ্ণু হওয়া, সর্বাবস্থায় শাšি—-স¤প্রীতি বজায় রাখা, অন্যের প্রতি সৌজন্যতা-শ্রদ্ধাবোধ পোষণ এবং আত্মিক ও নৈতিকভাবে উৎকর্ষতা অর্জন। ব্যক্তি ¯^ার্থকে গৌণ করা ও অতি কামনা-বাসনার মনোবৃত্তি পরিহার করে পরকল্যাণ চেতনা জাগ্রত করাই মুসলমানদের বৈশিষ্ট্য। তিনি বলেন, সূফী ব্যক্তিত্বদের জীবনাদর্শ গ্রহণ করে মর্যাদাপূর্ণ সমৃদ্ধ সফল জীবনের দিকে সবাইকে ফিরে আসা উচিত। আত্মসর্ব¯^তা ও ভোগবাদী জীবনধারা থেকে বেরিয়ে আসার সতত প্রয়াস চালিয়ে যাওয়ার তাগিদ দেন তিনি। তাসাউফী জলসায় অন্যদের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন- সূফীজ চট্টগ্রাম জেলা আহŸায়ক এ্যাডভোকেট কাজী মহসীন চৌধুরী, সৈয়দ মুহাম্মদ সিরাজউদ্দৌলা, আন্জুমান চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি খলিফা আলহাজ্ব বোরহান উদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক ব্যাংকার ইউছুফ রেজা মিন্টু, খলিফা নাজিমুদ্দৌলা, খলিফা আবদুল হামিদ, অধ্যাপক মুহাম্মদ ইউনুস হাসান, উপাধ্য¶ শাহ্ আহমদ নবী, অধ্যাপক কাজী ফরিদ উদ্দীন আখতার, ড. মাওলানা আনোয়ার হোসেন, মুহাম্মদ আবদুল­াহ আল মুরাদ, মাস্টার মুহাম্মদ আবুল হোসাইন, আন্জুমান কেন্দ্রীয় সহ-প্রচার সম্পাদক শাহ মুহাম্মদ ইব্রাহিম মিয়া, সূফীজ চট্টগ্রাম জেলা যুগ্ম আহŸায়ক নিজাম উদ্দীন আশরাফী, কাজী মুহাম্মদ আহসানুল মোরশেদ, প্রভাষক কামর“ন নাহার লিপি প্রমুখ। পরে সালাত-সালাম শেষে দেশ ও বিশ্ববাসীর শাšি—-কল্যাণ কামনায় মুনাজাত পরিচালনা করেন হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী।

Posted in Uncategorized | Comments Off on ইসলামের নামে সন্ত্রাস ও উগ্রপন্থা পরিহার করা ও ভারসাম্যপূর্ণ মধ্যপন্থা অবলম্বনই ইসলামের নির্দেশনা-চট্টগ্রাম মাইজভাÊার মন্জিলে সূফীজ এর তাসাউফী জলসায় সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)

মইনীয়াঅন্যায় অবিচার জুলুম নির্যাতনের বির“দ্ধে ইমাম হোসাইনের শাহাদাত থেকে আমাদের কর্ম প্রচেষ্টার শি¶া নিতে হবে-মইনীয়া যুব ফোরামের শোহদায়ে কারবালা মাহফিলে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)

মইনীয়া যুব ফোরামের শোহদায়ে কারবালা মাহফিলে
হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)
অন্যায় অবিচার জুলুম নির্যাতনের বির“দ্ধে ইমাম হোসাইনের
শাহাদাত থেকে আমাদের কর্ম প্রচেষ্টার শি¶া নিতে হবে
ফটিকছড়ি-রাঙ্গুনীয়া ঃ মইনীয়া সুন্নীয়া যুব ফোরাম রাঙ্গুনীয়া শাখার উদ্যোগে ২৯ নভেম্বর শুক্রবার উত্তর পোমরা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে শোহদায়ে কারবালা স্মরণে মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে দরবারে গাউছুল আযম মাইজভাÊারীর সাজ্জাদানশীন, আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাÊারীয়ার কেন্দ্রীয় সভাপতি, রাহ্নুমায়ে শরীয়ত ও ত্বরীকত হযরতুলহাজ্ব মাওলানা শাহ্সূফী সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী বলেন, ইমাম হোসাইন রাদ্বিয়াল­াহু তা’য়ালা আনহু ¶মতার জন্য যুদ্ধ করেননি। তিনি ঈমান ও ইসলাম র¶ার জন্যই যুদ্ধ করেছিলেন। তিনি অন্যায়ের সামনে মাথানত না করে সপরিবারে শাহাদাত বরণ করে কালিমায়ে তাওহীদকে কিয়ামত পর্যš— জারী করে গেছেন উলে­খ করে তিনি বলেন অন্যায় অবিচার জুলুম নির্যাতনের বির“দ্ধে ইমাম হোসাইনের শাহাদাত থেকে আমাদেরকে কর্ম প্রচেষ্টার শি¶া নিতে হবে। তিনি মদ, জুয়া ও অসামাজিক কার্যকলাপের বির“দ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলার জন্য মইনীয়া যুব ফোরাম নেতৃবৃন্দকে নির্দেশ দেন। এই ¶েত্রে জনসচেতনতা গড়ে তুলতে মইনীয়া যুব ফোরামকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করার আহŸান জানান। মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন খলিফা আলহাজ্ব আবদুল হামিদ মাইজভাÊারী, প্রধান বক্তা ছিলেন কুমিল­া গিলাতলা দরবার শরীফের নায়েবে সাজ্জাদানশীন পীরজাদা মুফতী মাওলানা খাজা বাকী বিল­াহ আল-আযহারী। বিশেষ বক্তা ছিলেন রাণীরহাট আল আমীন হামিদীয়া ফাজিল মাদ্রাসার আরবী প্রভাষক মাওলানা আবুল কালাম বয়ানী, চট্টগ্রাম মুনসুরাবাদ জামে মসজিদ খতিব, বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন আল­ামা সেকান্দর হোসাইন আল কাদেরী। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন- মালিরহাট রহমানিয়া মইনীয়া জামে মসজিদের খতিব মাওলানা একরামুল হক নঈমী, মাওলানা সিদ্দিক আহম্মেদ, মাওলানা আব্দুর রহিম, মাওলানা কোরবান আলী, মাওলানা সৈয়দুল ইসলাম, আন্জুমান কেন্দ্রীয় সহ-¯ে^চ্ছাসেবক সম্পাদক ওয়াহিদুল কবির চৌধুরী, মইনীয়া যুব ফোরাম রাঙ্গুনীয়া থানা শাখার সভাপতি মুহাম্মদ র“বেল হোসাইন প্রমুখ। মাহফিল শেষে দেশ জাতি, মুসলিম উম্মাহ ও সর্বমানবতার কল্যাণ কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করেন মাওলানা শাহ্সূফী সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী।

Posted in Uncategorized | Comments Off on মইনীয়াঅন্যায় অবিচার জুলুম নির্যাতনের বির“দ্ধে ইমাম হোসাইনের শাহাদাত থেকে আমাদের কর্ম প্রচেষ্টার শি¶া নিতে হবে-মইনীয়া যুব ফোরামের শোহদায়ে কারবালা মাহফিলে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)

কর্ণফুলী শিকলবাহায় শাহাদাতে কারকারবালার চেতনায় জেগে ওঠে মুসলমানদেরকে আত্মমর্যাদা নিয়ে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে হব-কর্ণফুলী শিকলবাহায় শাহাদাতে কারবালা মাহফিলে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী (ম.জি.আ.)

কর্ণফুলী শিকলবাহায় শাহাদাতে কারবালা মাহফিলে
হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী (ম.জি.আ.)
কারবালার চেতনায় জেগে ওঠে মুসলমানদেরকে
আত্মমর্যাদা নিয়ে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে হবডেস্ক ঃ চট্টগ্রাম মাইজভাÊার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন আওলাদে রাসূল সাল­াল­াহু আলাইহি ওয়াছাল­াম শাহসূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী বলেছেন, নির্যাতিত মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের অভাব-অভিযোগ ও দুঃখ-দুর্দশা দূর করতে রাষ্ট্র নেতৃত্ব ও রাজনীতিকদের দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখাই শাহাদাতে কারবালার অš—র্নিহিত শি¶া। ধিকৃত ইয়াজিদ অন্যায়ভাবে ¶মতায় বসেই ইসলামী বিধি বিধানের বিকৃতি ঘটিয়ে জনগণের ওপর নির্যাতন ও জুলুম চাপিয়ে দেয়। আর অধিকারহারা নির্যাতিত মানুষের প¶ে আপসহীন সংগ্রামে অবতীর্ণ হন আহলে বায়তে রাসূল সাল­াল­াহু আলাইহি ওয়াছাল­াম ও ইমাম হোসাইন রাদ্বিয়াল­াহু তা’য়ালা আনহু। তিনি বলেন, দেশ ও সমাজে অন্যায়, অপরাধ প্রবণতা, জননিপীড়ন ও অন্যায়ের শাসন মাথাচাড়া দিয়ে উঠলে তার বির“দ্ধে শাšি—কামী মানুষকে প্রতিবাদী সোচ্চার ভূমিকা পালন করে যাওয়াই শাহাদাতে কারবালার প্রকৃত শি¶া। যুগে যুগে দেশ শাসনের ¶েত্রে ন্যায়নীতি অনুসরণ করা এবং জাতীয় নেতৃত্ব ও রাজনীতিকদের গণমুখী ও সত্যনিষ্ঠ হওয়ার প্রেরণাই হচ্ছেন ইমাম হোসাইন রাদ্বিয়াল­াহু তা’য়ালা আনহু। কারবালার চেতনায় জেগে ওঠে মুসলমানদেরকে আত্মমর্যাদা নিয়ে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর আহŸান জানান তিনি। ২ ডিসেম্বর’২০১৩, সোমবার কর্ণফুলী শিকলবাহাস্থ এজে চৌধুরী কলেজ ময়দানে কাদেরিয়া ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আয়োজিত শাহাদাতে কারবালা মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী এ কথা বলেন। মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন মাওলানা মুফতি ফরিদুল আলম রিজভি। বিশেষ অতিথি ছিলেন পটিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মুহাম্মদ ইদরিস মিয়া, মাওলানা ইয়াসিন আনসারী আল মাদানী। বিশেষ বক্তা ছিলেন মাওলানা নূর“ল ইসলাম হেলালী, মাওলানা ওসমান গণি আশরাফী, এস. এম সালেহ্, আনজুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাÊারীয়া দ¶িণ জেলার সাধারণ সম্পাদক কাজী মুহাম্মদ শহীদুল¬াহ, মাওলানা নিজাম উদ্দিন আশরাফী প্রমুখ। সালাত সালাম শেষে দেশ ও বিশ্ববাসীর শাšি— কল্যাণ এবং বিপর্য¯— অবস্থা থেকে দেশবাসীর মুক্তির ল¶্যে আল¬াহর রহমত কামনায় মুনাজাত পরিচালনা করেন হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী আল মাইজভাÊারী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী। বহু দ্বীনদার জনতা মাহফিলে অংশ গ্রহণ করেন।

Posted in Uncategorized | Comments Off on কর্ণফুলী শিকলবাহায় শাহাদাতে কারকারবালার চেতনায় জেগে ওঠে মুসলমানদেরকে আত্মমর্যাদা নিয়ে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে হব-কর্ণফুলী শিকলবাহায় শাহাদাতে কারবালা মাহফিলে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী (ম.জি.আ.)

দ¶িন মধ্যম হালিশহর শাহাদাতে কারবালা মাহফিলে আল­ামা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.) শোহাদায়ে কারবালার শোকাবহ ঘটনা অন্যায় ও অত্যাচারের বির“দ্ধে অনুপ্রেরণা জোগায়

দ¶িন মধ্যম হালিশহর শাহাদাতে কারবালা মাহফিলে
আল­ামা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)
শোহাদায়ে কারবালার শোকাবহ ঘটনা
অন্যায় ও অত্যাচারের বির“দ্ধে অনুপ্র চট্টগ্রাম ঃ ১৪ নভেম্বর’২০১৩ ইং বৃহস্পতিবার বাদে মাগরিব চট্টগ্রাম মহানগরীর বন্দর থানাধীন ৩৮নং দ¶িণ মধ্যম হালিশহর ওয়ার্ড বাগ-এ-রহমানিয়া হোসাইনীয়ার ব্যবস্থাপনায় হালিশহর আহমদ মিয়া গালর্স হাইস্কুল সংলগ্ন আল্হাজ্ব আহমদ শরীফ প্রকাশ বেদু সওদাগরের বিশাল ময়দানে আহলে বায়তে রাসূল সাল­াল­াহু আলাইহি ওয়াছাল­াম স্মরণে আয়োজিত আজিমুশ্শান শাহাদাতে কারবালা মাহফিলে মেহমানে আলা হিসাবে তশরীফ আনেন মাইজভাÊার দরবার শরীফের সাজ্জদানশীন ও মোš—াজেম, আওলাদে রসূল সাল­াল­াহু আলাইহি ওয়াছাল­াম, রাহনুমায়ে শরীয়ত ও ত্বরীক্বত, মুর্শিদে বরহক, আল­ামা শাহ্সূফী সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী ওয়াল হোসাইনী আল্-মাইজভাÊারী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী ছাহেব। প্রধান মেহমানের ভাষণে তিনি বলেন কারবালার শোকাবহ ঘটনা অন্যায় ও অত্যাচারের বির“দ্ধে অনুপ্রেরণা জোগায়। কারবালায় ইমাম হোসাইন রাদ্বিয়াল­াহু তায়ালা আনহু সহ নবী বংশের আত্মত্যাগ ছিল ইসলামের আদর্শকে সমুন্নত রাখা। সেদিন নবী বংশের আওলাদগণ আত্মত্যাগের মাধ্যমে যে অনন্য নজির স্থাপন করে গিয়েছেন তা যুগে যুগে শাšি— প্রিয় মানুষকে অন্যায়ের বির“দ্ধে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর অনুপ্রেরণা যোগাবে। কারবালার হৃদয় বিদারক ঘটনা ছিল অন্যায়ের বির“দ্ধে সত্যের লড়াই। অসত্য আর অন্যায়ের বির“দ্ধে সংগ্রামের প্রতীক আহলে বাইতের চেতনাকে ধারণকরে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব বলে উলে­খ করে আল­ামা হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী আরো বলেন আহলে বাইতের মহান চেতনায় উদ্ধুদ্ধ হয়ে সারা বিশ্বের দুর্নীতি, অন্যায়, অবিচার, জুলুম, নির্যাতন ও নিপীড়ন বন্ধে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার আহŸান জানান। স্থানীয় জাফর আলী মালুম জামে মসজিদের খতিব মাওলানা নূর“ল কবির রিজবীর সভাপতিত্বে, ও চট্টগ্রাম মহানগর আন্জুমানের সেক্রেটারী জেনারেল, বিশিষ্ট ব্যাংকার ইউসুফ রেজা মিন্টু’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মাহফিলে প্রধান ওয়ায়েজীন ছিলেন আš—র্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আলেমে দ্বীন, ছোবহানিয়া আলীয়া মাদ্রাসার অধ্য¶ মুফতীয়ে আহলে সুন্নাহ্ হযরতুল্হাজ্ব মাওলানা হার“নুর রশিদ ছাহেব। তিনি বলেন বর্তমান ফিতনা ফ্যাসাদের এ সময়ে ঈমান আক্বীদা র¶া দুনিয়ার শাšি— ও আখিরাতের মুক্তির জন্য আহলে বায়তে রাসূল তথা আওলাদে রসূল সাল­াল­াহু আলাইহি ওয়াছাল­াম গণের মুহাব্বত ও অনুসরণের কোন বিকল্প নাই। বিশেষ ওয়ায়েজীন উরকিরচর গাউছিয়া মোহাম্মদিয়া সিনিয়র মাদ্রাসার অধ্য¶ হেলালে আহলে সুন্নাত আল­ামা হাচান রেজা আল্-কাদেরী ছাহেব বলেন- অবিকৃতভাবে আমরা যে ধর্ম পেয়েছি তা হযরত ইমাম হোসাইন রাদ্বিয়াল­াহু তায়ালা আনহুর অবদান। বিশ্ব মুসলিম মিল­াত কিয়ামত পর্যš— তাঁর অবদানের জন্য ঋনী থাকবে। ওয়ায়েজীন হিসাবে আরো তকরির পেশ করেন- খাঁন সাহেব আল্হাজ্ব আবদুল খালেক সওদাগর জামে মসজিদের খতিব, ছোবহানীয়া আলীয়া মাদ্রাসার মুহাদ্দিস মাওলানা আব্দুল আজিজ আনোয়ারী ছাহেব, আল মদীনা জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আবু সালেহ আনোয়ারী, গাজী ওমর শাহ্ জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আলী হোসেন নিজামী, অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ৩৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোলাম মুহাম্মদ চৌধুরী, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ জনাব এস.কে খোদা তোতন, বৃহত্তর মহল­া নাগরিক অধিকার বা¯—বায়ন পরিষদের সভাপতি হাজী নেজাম উদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক হাজী এন.এম জাহাঙ্গীর, চার মহল­া সমাজ কল্যাণ ঐক্য পরিষদের সভাপতি হাজী হানিফ সওদাগর, কেন্দ্রীয় আন্জুমানের সহ-সভাপতি কবীর চৌধুরী, সহ-সভাপতি শফিউল আলম তালুকদার, দুবাই কেন্দ্রীয় আন্জুমান কমিটির সহ-সভাপতি এম.এ কুদ্দুস, হযরত সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ মাইজভাÊারী ট্রাস্টের সচিব এ্যাডভোকেট খলিফা কাজী মহসীন চৌধুরী, চট্টগ্রাম মহানগর আন্জুমানের সভাপতি খলিফা আল্হাজ্ব মুহাম্মদ বোরহান উদ্দিন, সহ-সভাপতি খলিফা মুহাম্মদ আবুল ফয়েজ, সহ-সভাপতি মনির হোসেন মনু, যুগ্ম সম্পাদক খলিফা নাজিম উদদৌলা, সহ-সাধারণ সম্পাদক এস.এম সিদ্দিক, শফিউল আলম, অর্থ সম্পাদক খলিফা হাজী আজিম উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক জসিম উদ্দিন ভূঁইয়া, বছির ভাÊার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন খলিফা শামসুল আলম সানজেরী, দ¶িনজেলা আন্জুমানের সাধারণ সম্পাদক কাজী মুহাম্মদ শহীদ উল­াহ্, সাংগঠনিক সম্পাদক মোজাহের আলম, অর্থ সম্পাদক আলমগীর সওদাগর, উত্তর জেলা আন্জুমানের আহŸায়ক আব্দুল হামিদ, যুগ্ম আহŸায়ক আব্দুল মোতালেব, মাহফিলে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন হাসান উদ্দিন সোহেল, মুহাম্মদ মনির উদ্দিন, সাইফুল ইসলাম, মুহাম্মদ কায়সার রেজা, মুহাম্মদ ওমর ফার“ক, উছমান গণি মাসুদ, জয়নাল আবেদীন, মুহাম্মদ রাশেদ, আব্দুর রহিম, মুহাম্মদ সাজ্জাদ কবির, মুহাম্মদ রানা, মুহাম্মদ টুটুল, মুহাম্মদ আরিফ, মুহাম্মদ আরমান, মুহাম্মদ রাসেল, মুহাম্মদ হাসান, মুহাম্মদ আবুল, প্রমুখ। উলে­খ্য, মোটর সাইকেল শোভাযাত্রা সহকারে হুজুর কেবলা মাদ্দাজিল­ুহুল আলীকে জুলুস করে মাহফিল স্থলে নিয়ে যাওয়া হয়। এতে এলাকার অসংখ্য সুন্নী মুসলমান অংশগ্রহণ করেন। শাহাদাতে কারবালা মাহফিল শেষে দরূদ-সালাম ও জিকিরের পর মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী আল­াহর দরবারে সকল মুসলিম উম্মাহ্ ও বাংলাদেশের শাšি—-স¤প্রীতি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করেন।

Posted in Uncategorized | Comments Off on দ¶িন মধ্যম হালিশহর শাহাদাতে কারবালা মাহফিলে আল­ামা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.) শোহাদায়ে কারবালার শোকাবহ ঘটনা অন্যায় ও অত্যাচারের বির“দ্ধে অনুপ্রেরণা জোগায়

বিপদে ধৈর্যধারণ, আল­াহ ও রাসূলের (দ.) ওপর পূর্ণ ভরসা রাখাই শাহাদাতে কারবালার শি¶া-ঢাকা বাবুবাজার শাহাদাতে কারবালা মাহফিলে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)

ঢাকা বাবুবাজার শাহাদাতে কারবালা মাহফিলে হযরত
সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)
বিপদে ধৈর্যধারণ, আল­াহ ও রাসূলের (দ.) ওপর
পূর্ণ ভরসা রাখাই শাহাদাতে কারবালার শি¶া
ডেস্ক ঃ মাইজভাÊার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাÊারীয়ার কেন্দ্রীয় সভাপতি আওলাদে রাসূল সাল­াল­াহু আলাইহি ওয়াছাল­াম শাহসূফী মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী বলেছেন, কঠিন বিপদে ধৈর্যধারণ এবং আল­াহ ও রাসূলের সাল­াল­াহু আলাইহি ওয়াছাল­াম ওপর পূর্ণ ভরসা রেখে দ্বীন ও সত্যের ওপর সুদৃঢ় থাকার শি¶া পাই আমরা কারবালার মর্মন্তুদ ঘটনা থেকে। ইমাম হোসাইন রাদ্বিয়াল­াহু তা’য়ালা আনহু ও আহলে বায়তে রাসূল সাল­াল­াহু আলাইহি ওয়াছাল­াম নিজেদের মূল্যবান জীবন উৎসর্গীত করে অনন্য দৃষ্টাš— স্থাপন করে এটাই শি¶া দিয়ে গেছেন যে, কঠিন বিপদ মোকাবিলা করেই সর্বাবস্থায় দ্বীন ও ইসলামের ওপর সুদৃঢ় থাকতে হবে। তিনি বলেন, মুসলিম দেশগুলোতে আজও কারবালার ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটছে। সর্বত্র হানাহানি-সংঘাতের কারণে শাšি—প্রিয় মানুষ আজ উদ্বিগ্ন ও উৎকণ্ঠিত। এই দুঃসহ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে শাশ্বত মুক্তির পথ আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আতের ওপর প্রতিষ্ঠিত থাকতে হবে। সূফিবাদী মাইজভাÊারী দর্শন ও সুন্নিয়তে বিশ্বাসীরা সংঘাত-হানাহানি থেকে দূরে থেকে ইসলামের ন্যায়ভিত্তিক উদারবাদী আদর্শকে সমুন্নত রেখেছে বলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন। আনজুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাÊারীয়া ঢাকা বাবুবাজার শাখার উদ্যোগে আরমানি টোলা কলেজ মাঠে ৩ ডিসেম্বর’২০১৩, মঙ্গলবার আয়োজিত শাহাদাতে কারবালা মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী এ কথা বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন খলিফা হাজী মুহাম্মদ আফসার উদ্দিন। শাহাদাতে কারবালার তাৎপর্য নিয়ে মাহফিলে আলোচনায় অংশ নেন-মাওলানা নূর“ল ইসলাম জামালপুরী, মাওলানা মুফতি বাকি বিল­াহ আল আযহারী, মাওলানা র“হুল আমিন ভুইয়া চাঁদপুরী, মাওলানা খাজা বাহাউদ্দিন, খলিফা মুহাম্মদ শাহজাহান রামপুরী, খলিফা নেসার আহমদ, খলিফা মুহাম্মদ মনির হোসেন, মুহাম্মদ লিটন মিয়া, খলিফা মুহাম্মদ কামর“ল হাসান, খলিফা মুহাম্মদ ফিরোজ মিয়া প্রমুখ। সালাত সালাম শেষে বিশ্বশাšি— ও অশাšি—-অরাজকতা থেকে পরিত্রাণে আল­াহর রহমত কামনায় মুনাজাত পরিচালনা করেন শাহসূফি হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আলহাসানী মাদ্দাজিল­ুহুল আলী। বহু সুন্নি জনতা মাহফিলে অংশগ্রহণ করেন।

Posted in Uncategorized | Comments Off on বিপদে ধৈর্যধারণ, আল­াহ ও রাসূলের (দ.) ওপর পূর্ণ ভরসা রাখাই শাহাদাতে কারবালার শি¶া-ঢাকা বাবুবাজার শাহাদাতে কারবালা মাহফিলে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী (ম.জি.আ.)